শুক্রবার ২৫ জুন ২০২১ ১০ আষাঢ় ১৪২৮
 
শিরোনাম: তবুও ঢাকামুখী মানুষের ঢল        যেকোনো সময় যেকোনো সিদ্ধান্ত: ফরহাদ হোসেন       চলচ্চিত্রে পরিমণির নিষিদ্ধের গুঞ্জন!        সারাদেশে ১৪ দিনের ‘শাটডাউনের’ সুপারিশ        দেশে আক্রান্ত আরও বাড়ল, মৃত্যু ৮১        চামড়া সিন্ডিকেট রোধে নজরদারি করবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী       চারটি আইনে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর      


প্রতি ঈদে যে অপেক্ষায় থাকেন শাহরুখ
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশ: শুক্রবার, ১৪ মে, ২০২১, ৯:৩৯ পিএম |

বলিউডের তিন খান শাহরুখ, সালমান, আমির প্রতিবারই ঈদ উদ্‌যাপন করেন। এই তিন খানেরই কৈশোরের ঈদ ছিল একেবারে অন্য রকম। বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে তারা বলেছেন, শৈশবের ঈদ উদযাপনের স্মৃতি। শাহরুখ জানিয়েছেন, ঈদে শৈশবে মা-বাবার হাতে রান্না করা সুস্বাদু খাবারের অপেক্ষায় থাকতেন তিনি। 

প্রতি ঈদেই শাহরুখ খানের স্বপ্নের ‘মান্নাত’ (শাহরুখের বাড়ি) আলোয় ঝলমল করে ওঠে। পরিবার, বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন, চলচ্চিত্র পরিবারের সবার সঙ্গে দিনটি কিং খান বিশেষভাবে উদ্‌যাপন করেন। এই বলিউড সুপারস্টার মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন, ঈদ মানে সবাই মিলিত হওয়ার উৎসব। এদিন তার বাড়িতে রাজকীয় খাবারের আয়োজন থাকে।

তবে ঈদের দিন নাকি বাড়ির খাবার একদম খান না শাহরুখ খান। বন্ধু সালমান খানের বাড়ির বিশেষ বিরিয়ানির অপেক্ষায় থাকেন তিনি।

মায়ের হাতের হায়দরাবাদি খাবার আজও মিস করেন শাহরুখ। এত প্রাচুর্যের মধ্যেও কৈশোরের ঈদ ভুলতে পারেননি তিনি।

ছোটবেলার ঈদ নিয়ে এক সাক্ষাৎকারে শাহরুখ বলেছিলেন, ‘ছোটবেলায় ঈদের দিনে আমি কিছুতেই কুর্তা-পায়জামা পরতে চাইতাম না। মাও আমাকে ছাড়তেন না। তিনি আমাকে জোর করে কুর্তা-পায়জামা পরাতেন। আজ আমিও আমার ছেলেকে জোর করে পাঠানি স্যুট এবং আচকান পরাই।’

শাহরুখ আরও বলেছিলেন, ‘ঈদের দিনে বাবার স্কুটিতে চেপে মসজিদে নামাজ পড়তে যেতাম। এদিন মা হায়দরাবাদি খাবার বানাতেন। আর বাবা রান্না করতেন পাঠানি খাবার। আমি এসব সুস্বাদু খাবারের অপেক্ষায় থাকতাম।’









প্রকাশক: এম এন এইচ বুলু
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মাহফুজুর রহমান রিমন  
বিএনএস সংবাদ প্রতিদিন লি. এর পক্ষে প্রকাশক এম এন এইচ বুলু কর্তৃক ৪০ কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ, বুলু ওশেন টাওয়ার, (১০তলা), বনানী, ঢাকা ১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
ফোন:০২৯৮২০০১৯-২০ ফ্যাক্স: ০২-৯৮২০০১৬ ই-মেইল: [email protected]